Wednesday , 5 June 2024 | [bangla_date]
  1. অন্যান্য
  2. অপরাধ
  3. অর্থনীতি
  4. আইন ও আদালত
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আশাশুনি
  7. কক্সবাজার
  8. কলারোয়া
  9. কালিগঞ্জ
  10. কিশোরগঞ্জ
  11. কুড়িগ্রাম
  12. কুমিল্লা
  13. কুষ্টিয়া
  14. কৃষি
  15. খাগড়াছড়ি

বয়স জালিয়াতি করে ৩৭ বছর ধরে চাকরি করছেন মীর আব্দুল গনি

প্রতিবেদক
Kopotakkho Times
June 5, 2024 11:57 am

কে এম শাহীনুর রহমান:

সনদে বয়স জালিয়াতি করে বিগত প্রায় ৩৭ বছর ধরে সাতক্ষীরার তালা উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধদিপ্তরের ‘ভি,এস ম্যাশন’ পদে চাকরি করছেন মীর আব্দুল গনি। তিনি তালা সদরের মৃত মীর বদর উদ্দীনের পুত্র। দীর্ঘদিন প্রশাসনের নাকের ডগায় তিনি বয়স জালিয়াতি করে চাকুরী করে আসলেও কারো নজরে আসেনি।

এছাড়া মীর আব্দুল গনির বিরুদ্ধে জমি দখল, প্রতারণা, চুরি, নারী কেলেংকারী, সুদের ব্যবসাসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। সরকারী চাকুরী করার পরও তার স্ত্রী ছামেনা খাতুনের নামে ৫০ শতাংশ খাসজমি বন্দোবস্ত নিয়ে সেটা বহাল তবিয়াতে ভোগ দখল করে আসছেন মীর আব্দুল গনি।

এদিকে সংবাদ কর্মীরা তার অফিসে গিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমার বয়স প্রায় ৭৪ বছর চলে।” অথচ ভুয়া জন্মতারিখ অনুয়ায়ী মীর আব্দুল গনির বয়স এখন ৫৮ বছর। বর্তমান তার জাতীয় পরিচয়পত্রে জন্ম তারিখ উল্লেখ রয়েছে ১৫ জুন ১৯৬৬,অথচ তার ছোট ভাই মীর রফিকুল ইসলামের জন্ম ৩০ সেপ্টেম্বর, ১৯৫১। ছোট ভাইয়ের চেয়ে মীর আব্দুল গনির বয়স প্রায় ১৫ বছর কম হয় কিভাবে এনিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে। স্থানীয়রা বিষয়টি তদন্তপূর্বক অভিযুক্ত মীর আব্দুল গনির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃর্পক্ষের নিকট জোরালো দাবি জানিয়েছেন।

অভিযোগে স্থানীয়রা উল্লেখ করেন, প্রায় ৩৭ বছর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধদিপ্তরের ‘ভি,এস ম্যাশন’ পদে চাকরি করছেন মীর আব্দুল গনি। টানা ২৭ বছর তিনি নিজ উপজেলা সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় চাকুরী করেন। তালা সদরে বাড়ি হওয়ায় অধিকাংশ সময় তাকে অফিসে দেখা যায় না। অফিসের বস বাইরে ফিল্ডে যাবার সাথে সাথে সে বাড়িতে চলে যায়। তাছাড়া এক সময়ের চরমপন্থী সদস্য তালা উপজেলার ডাংগানলতা গ্রামের মৃতঃ তুফান খাঁর পুত্র একাধিক বিয়ের হোতা কফিল উদ্দীন খাঁর সাথে মিলে জমি প্রতারণা, দখল, সুদের ব্যবসা, জাল দলিল তৈরিসহ নানান অপকর্মে জড়িয়ে পড়েন। আব্দুল গনির স্ত্রীর সাথে পলাতক ঐ চরমপন্থী নেতা কফিল উদ্দীন খাঁ’র সখ্যতার কারণে এবং তার আশ্রয়-প্রশ্রয়ে এহেন কর্মকান্ড করে চলেছেন তিনি। দীর্ঘদিন ২৭/২৮ ধরে নিজ উপজেলায় কর্মরত থাকার সুবাদে মীর আব্দুল গনি অফিস
ফাঁকিসহ নানান অপকর্ম করে চলছে।

মীর আব্দুল গনির প্রকৃত জন্ম তারিখ ১৯৫০ সালের দিকে হবে বলে জানান স্থানীয় প্রবীণরা। তার চেয়ে বয়সে ছোট অনেকেই চাকুরী থেকে অবসরে গিয়েছেন। বিশেষ করে এক সময় তার ছাত্র কাজী নজরুল বারী (মনি কাজী) ৩/৪ বছর আগে চাকুরী থেকে অবসরে গেলেও এখনও বহাল তবিয়াতে চাকুরী করছেন আব্দুল গনি।

এদিকে মীর আব্দুল গনির নিজের ছোট ভাইয়ের বয়সও বর্তমানে প্রায় ৭৩ বছর। অন্যান্য ছোটভাইদের বয়সও জন্মসনদ অনুয়ায়ী তার চেয়ে বেশি বলে জানা গেছে। অথচ জালিয়াতি করে বয়স বাড়িতে তিনি বহাল তবিয়াতে চাকুরী করে যাচ্ছেন। এদিকে তার চাকুরীর সনদপত্র নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে এলাকাবাসীর।

শুধু তাই নয়, দীর্ঘদিন চাকুরীর সুবাদে মীর আব্দুল গনি খুলনা সদর, কয়রা, বটিয়াঘাট, তেরখাদা উপজেলায় একাধিক নারী কেলেংকারীর সাথে জড়িয়ে পড়েন। এসব ঘটনায় তার বেশ কিছুদিন অফিসে যাওয়া বন্ধ ছিল বলে তার সাবেক সহকর্মীরা জানান। এছাড়া রিং-স্লাব তৈরির সময় বিভিন্ন অফিস হতে রিং, সিমেন্ট, বালি-খোয়া, মাটিয়া তেল চুরি করে বিক্রি করা ছিল তার নিত্যদিনের ঘটনা। চুরি ও নারী কেলেংকারীর ঘটনায় তিনি একাধিকবার চাকুরী থেকে সাসপেন্ড হন বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।

সূত্রটি জানায়, বিগত ৩৭ বছর পূর্বে অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে ও তথ্য গোপন করে সরকারি চাকরিতে যোগদান করেছিলেন মীর আব্দুল গনি। এছাড়া সরকারী চাকুরীজীবী হয়েও তালা সদর ইউনিয়নের জেয়াল নলতা মৌজায় তার স্ত্রী ছামেনা খাতুনের নামে ৫০ শতাংশ খাসজমি বন্দোবস্ত নিয়ে সেটি ভোগ দখল করে আসছেন আব্দুল গনি। এসব ঘটনা তদন্তপূর্বক অভিযুক্ত মীর আব্দুল গনির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট কতৃর্পক্ষের নিকট জোরালো দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

তালা থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, মীর আব্দুল গনি মহল্লাপাড়ায় এক মালিকের কাছ থেকে ঘরভাড়ার চুক্তিপত্র শেষ হবার পরও সেখান থেকে নামছিল না। পরে মালিক পক্ষের আবেদনের প্রেক্ষিতে উনি চলতি বছরের জুন মাস পর্যন্ত সময় চেয়ে নিয়ে আরেকটি ননজুুডিশিয়াল স্টাম্পে স্বাক্ষর করে সময় চেয়ে নেন।

এদিকে মীর আব্দুল গনি সাংবাদিকদের বলেন, “আমার বয়স প্রায় ৭৪ বছর চলে।” তবে এখনও তিনি কিভাবে চাকুরী করছেন সে প্রশ্নের কোন জবাব দিতে পারেননি। আর অন্যান্য অভিযোগের ব্যাপারে তিনি কোন কথা বলতে রাজি হননি।

তালা উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তের উপ-সহকারী প্রকৌশলী কৌশিক রায় জানান, এ ব্যাপারে তিনি অবগত নন। তবে বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হবে।

সর্বশেষ - তালা

আপনার জন্য নির্বাচিত

ঢাকায় পৌঁছেছেন মালদ্বীপের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বাঙালির প্রতিটি অর্জনই আন্দোলন-সংগ্রামে অর্জিত : প্রধানমন্ত্রী

দেবহাটা প্রেসক্লাবের সভা ও ইউএনও’র বিদায় সংবর্ধনা

আলু-পেঁয়াজের বাজার নিম্নমুখী

ভোমরা স্থলবন্দরে অফিস ভাংচুরকারীর মূল হোতারা রয়েছে ধরাছোঁয়ার বাইরে

ফরিদপুরে বিয়ের দাওয়াত না পেয়ে হামলা, আহত ৩০

তিন মাস বাড়তি সময় পাচ্ছেন মেয়াদোত্তীর্ণ ইউপির চেয়ারম্যানরা

নন্দীগ্রামের নির্বাচন : হেভিওয়েট লড়াইয়ে ক্যারিয়ার শেষ হচ্ছে কার?

মে মাসে দেশব্যাপী ইউপি নির্বাচন : সিইসি

পিএমখালী ইউনিয়নের তোতঁখালী ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত, হাশিম সভাপতি ও বজলু সম্পাদক নির্বাচিত